বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮
বিশেষ নিউজ

আইএস আতঙ্কে ভারতজুড়ে সতর্কতা


NEWSWORLDBD.COM - November 18, 2015

1447783060বিশ্বজুড়ে এক আতঙ্কের নাম জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)। গত শুক্রবার ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে একই সময় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় ভয়াবহ হামলা চালায় এই জঙ্গিগোষ্ঠি। প্যারিসের মতো নিরাপদ শহরে সিরিজ হামলা চালাতে সক্ষম হওয়ায় আইএস বিষয়ে নড়েচড়ে বসেছে পুরো বিশ্ব। বিশ্বের প্রভাবশালী দেশও এই জঙ্গিগোষ্ঠীদের নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে। করছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। মোটকথা আইএস এখন বিশ্ববাসীর জন্য মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর রেশ আছে বাংলাদেশেও। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে বিষয়টি উড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। প্যারিসের ওই ঘটনায় আতঙ্কে আছে ভারতও। তারাও আইএসের হামলার শঙ্কায় আছে। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আইএসের হামলার ঝুঁকিতে আছে ভারতও। তাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দেশের সব রাজ্যে সতর্কতা পাঠানো হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এ ব্যাপারে বলেছেন, সব রাজ্যকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে- যাতে কোনো মুহুর্তে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্যগুলো সক্ষম হয়।

দিল্লিতে মঙ্গলবার তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আইএস এখন কোনো নির্দিষ্ট দেশের কাছে হুমকি নয়। এই গোষ্টি এখন গোটা বিশ্বের প্রতি হুমকি। তাই আমরাও তাদের ব্যাপারে সতর্ক।

প্যারিসের সাম্প্রতিক ভয়াবহ হামলার পর ভারতের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আগেভাগেই সতর্ক হয়ে নিরাপত্তা বাড়িয়ে দিতে বলে কেন্দ্রকে। অন্যদিকে, ভারতের সবগুলো রাজ্যে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে যে সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, ‘যদিও আইএস ভারতে এখনো পর্যন্ত তাদের কার্যক্রম তেমনভাবে প্রর্দশন করতে সক্ষম হয়নি, তবুও কিছু তরুণ-যুবকদের যে এই গোষ্টি টানতে সক্ষম হচ্ছে বা হয়েছে এটা সত্য। এই জঙ্গিরা ভারতের স্থানীয় এবং প্রবাসী যুবকদের দলে টানার চেষ্টা করছে। এরা ভারতের স্থানীয় জঙ্গিদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে সন্ত্রাসী হামলা চালাতে পারে।’ একারণে তাদের সতর্ক থাকা জরুরি বলে অভিমত দেয়া হয়েছে।

কেন্দ্রের সতর্কবার্তায় সব রাজ্যের পুলিশকে আইএসের হুমকির ব্যাপারে তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যালোচনা করতে বলা হয়েছে। একই সাথে আইএসের হামলার বেশি ঝুঁকিসম্পন্ন এলাকা চিহ্নিত এবং যেকোন ধরনের সহিংস পরিস্থিতি মোকাবিলার পরিকল্পনা প্রণয়নেরও তাগিদ দেয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় সরকার যে কেবল মৌখিক সতর্কতা দিয়েই সন্তুষ্ট নয় তা বোঝা যাচ্ছে তাদের কর্মকান্ডেও। দিল্লিতে অবস্থিত ফরাসি, মার্কিন, ব্রিটিশ, রুশ, অস্ট্রেলিয়া, তুরস্ক এবং ইসরাইলি কুটনৈতিক মিশনের নিরাপত্তা জোরদার করতে বলা হয়েছে। কারণ আইএস জঙ্গিরা এসব দেশের কুটনৈতিক স্বার্থে আঘাত হানতে পারে। এছাড়া বিদেশি নাগরিক ও খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা জোরদার করতে বলা হয়েছে। যেসব স্থানে বিদেশীরা জড়ো হয়, সেসব স্থানেও নিরাপত্তা বাড়াতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে।

ভারত সরকারে পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এখন পর্যন্ত ২০ জনের মতো ভারতীয় নাগরিক ইরাক ও সিরিয়ায় আইএসের সাথে হাত মিলিয়ে লড়াই করছে বলে জানা গেছে। এদের মধ্যে মুম্বাইয়ের কালিয়ান থেকে দু’জন আইএসের সঙ্গে আনুগত্য প্রকাশ করেছে। এছাড়া অস্ট্রেলিয়া ভিত্তিক এক কাশ্মিরী নাগরিক ছাড়াও তেলেঙ্গানা, কর্নাটক থেকে একজন করে আছেন আইএস জঙ্গিদের দলে। এছাড়া ওমান এবং সিঙ্গাপুর প্রবাসী দুই ভারতীয়ও যোগ দিয়েছে তাদের সঙ্গে।

কয়েকদিন আগে কলকাতায় আইএস জঙ্গি সন্দেহে ধরা পড়েছে আখতার খান নামে এক পাকিস্তানি নাগরিক। তার মতো আরো অনেকে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। একারণে ভারতের অন্যান্য রাজ্যগুলোর মতো পশ্চিমবঙ্গও সতর্ক অবস্থান গ্রহণ করেছে। রাজ্য সরকারের একটি সূত্র জানায়, আইএস ভাবধারায় বিশ্বাসী যুবকেরা এই রাজ্যেও হামলা চালাতে পারে। তাই মুসলিম যুব সমাজের দিকে সতর্ক নজর রাখতে বলা হয়েছে।

তবে ভারতের ১২টি রাজ্যের উপর আইএসের বেশি ঝুঁকি রয়েছে বলে জানতে পেরেছে দিল্লি। এর মধ্যে মহারাষ্ট্র ও দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলিতেই আইএসের ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। আশঙ্কা করা হচ্ছে, ধীরে ধীরে এ দেশের একটি সমপ্রদায়ের মধ্যে প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টায় রয়েছে আইএস। আর এই কারণে কাজে লাগানো হচ্ছে শিক্ষিত যুবকদের। এদের কাজ হল আরও দশ জনের মধ্যে সেই ভাবধারা ছড়িয়ে দেওয়া।

আইএসের ক্ষেত্রে উদ্বেগের কারণ, লস্কর-ই-তৈয়বা বা আল কায়েদা তার অনুসারীদের নিজেদের প্রশিক্ষণ শিবিরে নিয়ে এসে প্রশিক্ষণ দেয়। তারপর তাদের ফিদাইন হিসাবে ব্যবহার করে। কিন্তু আইএস স্রেফ ইন্টারনেট ব্যবহার করে যুবকদের নিজেদের ভাবধারায় অনুপ্রাণিত করছে। কিভাবে বোমা বানানো যায় এবং তা কোন এলাকায় ব্যবহার করলে সবথেকে বেশি ক্ষতি হতে পারে সে বিষয়ে বাড়িতে বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে!

সম্প্রতি আরও একটি তথ্য চিন্তায় ফেলে দিয়েছে কেন্দ্রকে। সরকার জানতে পেরেছে, এশিয়ার মধ্যে ভারতেই আইএস সম্পর্কিত ওয়েবসাইট সবচেয়ে বেশি বার দেখা হয়েছে। অর্থাৎ ভারতেও আইএস সম্পর্কে ক্রমশ আগ্রহ বেড়ে চলেছে। তাই অদূর ভবিষ্যতে আইএস যে ভারতের নিরাপত্তার জন্য বড় সমস্যা হতে চলেছে তা বুঝতে পেরেই আর দেরি না করে এই জঙ্গিদের মোকাবিলায় অ্যাকশনে নামতে চাইছে দিল্লি।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: Anwarul Karim Raju

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.