সোমবার ১৯ নভেম্বর ২০১৮
বিশেষ নিউজ

শেষ দফায় ভারতে ২৬ জন: নিখোঁজ ১৩ জন


NEWSWORLDBD.COM - November 30, 2015

Sitmahal_নীলফামারীর ডোমার উপজেলার চিলাহাটি-হলদিবাড়ি সীমান্ত দিয়ে সোমবার ১০টি পরিবারের ২৬ জন সদস্য স্থায়ীভাবে ভারতে চলে গেলেন। এর মধ্য দিয়ে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলা থেকে ৫ম ও শেষ দফায় বিলুপ্ত ছিটমহল থেকে তারা বাপ-দাদার ভিটেমাটি বেঁচে ও আত্মীয় স্বজনের কাছ থেকে চোখের জ্বলে বিদায় নিয়ে স্থায়ীভাবে ভারতে যান। এর মাধ্যমে পঞ্চগড়ের ৪৯১ জনের মধ্যে ভারত গেলেন ৪৭৮ জন। ১৩ জনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশকে বিদায় জানিয়ে নিজ দেশ ভারতের নাগরিকত্ব গ্রহণকারী পঞ্চগড় জেলার বিলুপ্ত ৫টি ছিটমহলের ৯৩টি পরিবারের ৪৫২ জন সদস্য ইতোমধ্যে চার দফায় ভারতে গমন করেছেন। মোট ৯৮টি পরিবারের ৪৮৭জন বাসিন্দা ভারতে যাওয়ার কথা থাকলেও নবাগত চার শিশুসহ সদস্য বেড়ে দাঁড়ায় ৪৯১ জন। এর মধ্যে ৫ জন সদস্য ও একটি পরিবার ভারতে যাওয়া আপত্তি করায় সোমবার ভারত যাওয়ার কথা ছিল ১০টি পরিবারের ৩৪ জন বাসিন্দার। কিন্তু ৯ জন বাসিন্দা সময়মত ক্যাম্পে না আসায় তাদের ছাড়াই ২৬ জনকে ভারত পাঠায় জেলা প্রশাসন। বিলুপ্ত দহলা খাগবাড়ি কোট ভাজিনী ও বেলুয়াডাঙ্গা বিলুপ্ত ছিটমহলের ২৬ জন বাসিন্দা রবিবার দেবীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ মাঠে জড়ো হয়ে সেখানে রাত্রিযাপন করেন।

সোমবার সকাল ১১টায় তাদের সেখান থেকে বিজিবি ও পুলিশের পাহারায় একটি বাসে করে চিলাহাটি নিয়ে আসা হয়। দুটি ট্রাকে করে নিয়ে আসা হয় তাদের মালামাল।

নীলফামারীর ডোমার উপজেলার ভোগডাবুড়ি ইউনিয়নের আব্দুর রউফ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে তাদের ইমিগ্রেশন কাজ সম্পন্ন করার পর বিকেলে ডাঙ্গাপাড়া সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় প্রতিনিধির কাছে ২৬ জনকে বাসিন্দাকে হস্তান্তর করা হয়।

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. গোলাম আজম, ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিহা সুলতানা, দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম তাদের ভারতীয় কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করেন।
এসময় ভারতের পক্ষে কুচবিহারের জেলা প্রশাসকের এডিএম আয়শা রানী, এসডিএম রঞ্জন ঝা, বিএসএফের ৫৮ ব্যাটালিয়ানের ডেপুটি কমান্ডার একে ঝা, কাস্টম সুপার সন্দীপ ব্যানার্জি, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি রমাকান্ত গুপ্তা তাদের বরণ করে নেন।

পঞ্চগড়ের তিন উপজেলার ৩৬টি বিলুপ্ত ছিটমহল থেকে ৪৯১ জনের স্থায়ীভাবে ভারতে যাওয়ার কথা ছিল। ২২ নভেম্বর থেকে পঞ্চগড় জেলার বিলুপ্ত ছিটমহলের ভারতীয় নাগরিকত্ব গ্রহণকারী বাসিন্দাদের ভারতীয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়।

প্রথম দফায় ভারত যায় ১৫টি পরিবারের ৪৮ জন, দ্বিতীয় দফায় ২৮টি পরিবারের ১৪৭ জন, তৃতীয় দফায় ৭২টি পরিবারের ৩৪৭ জন এবং চতুর্থ দফায় ভারত ২১টি পরিবারের ১০৫ জন বাসিন্দা।

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. গোলাম আযম বলেন, ৩০ নভেম্বরের মধ্যেই ভারতে নাগরিকত্ব গ্রহণকারীদের ভারতে পৌছাতে হবে। চার নবজাতকসহ ৪৯১ জনের ভারতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তালিকা অনুযায়ী ভারতগামী ১৩ জন বাসিন্দাকে পাওয়া যায়নি। তাদের ছাড়াই ৪৭৮ জন শান্তিপূর্ণভাবে ভারতে প্রবেশ করেছেন। ভারতে যাওয়ার জন্য তালিকাভুক্ত হওয়ার পরও যারা ভারতে যাননি পরবর্তী নির্দেশনা অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: Anwarul Karim Raju

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.