শুক্রবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » বিদেশ » প্যারিস হামলার বোমা প্রস্তুতকারী ব্রাসেলসের ঘটনায় গ্রেফতার
বিশেষ নিউজ

প্যারিস হামলার বোমা প্রস্তুতকারী ব্রাসেলসের ঘটনায় গ্রেফতার


NEWSWORLDBD.COM - March 23, 2016

atok-braselব্রাসেলসে হামলায় জড়িত প্রধান সন্দেহভাজন একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার ব্রাসেলসের একটি শহরতলী থেকে নাজিমকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে স্থানীয় একটি ওয়েবসাইটের বরাতে খবর প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো। বেলজিয়াম পুলিশের সন্ত্রাসবাদবিরোধী ইউনিটের দাবি, ব্রাসেলসে হামলার ঘটনায় মূল সন্দেহভাজন আইএসের বোমা প্রস্তুতকারী নাজিম লাকরাওই। প্যারিস হামলার বোমাও তার হাতেই তৈরি বলে সন্দেহ তাদের।

মঙ্গলবার ব্রাসেলসের বিমানবন্দরে হামলার ঘটনায় সিসিটিভি ফুটেজে শনাক্ত হওয়া তিন সন্দেহভাজনের একজন নাজিম। ওই হামলার ঘটনায় বাকি দুজন আত্মঘাতী ছিলেন। আর নাজিমকে বোমার স্যুটকেস ফেলে বিমানবন্দর থেকে বের হয়ে যেতে দেখা গেছে। আর তাই তৃতীয় সন্দেহভাজন নাজিমকে মরিয়া হয়ে খুঁজতে শুরু করে পুলিশ। অবশেষে বুধবার তাকে গ্রেফতারের দাবি করা হয়।

গত সপ্তাহে বেলজিয়ামের পুলিশের তরফে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল যে তারা প্যারিস হামলার মূল সন্দেহভাজন আব্দেসলামের সহযোগী নাজিমকে খোঁজা হচ্ছে। গত নভেম্বরে প্যারিসে হামলার ঘটনায়ও তিনিই আত্মঘাতী বোমা তৈরি করেছেন বলে সন্দেহ করা হয়ে থাকে। ফ্রান্সের পুলিশ কর্মকর্তাদের দাবি, প্যারিসের হামলায় ব্যবহৃত বোমা এবং পরে ব্রাসেলসের অ্যাপার্টমেন্টে অভিযানে উদ্ধার হওয়া বোমার মধ্যে নাজিমের ডিএনএ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার সকালে ব্রাসেলসের বিমানবন্দর ও মেট্রো স্টেশনে হামলার পর সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তিনজনকে শনাক্ত করা হয়, যার একজন নাজিম। বাকি দুজন ছিলেন আত্মঘাতী হামলাকারী। ওই দুই হামলাকারীর নাম খালিদ এল-বাকরাওই ও ব্রাহিম এল-বাকরাওই। সম্পর্কের দিক দিয়ে তারা পরস্পরের ভাই বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। সংবাদমাধ্যমটি জানায়, ওই দুই হামলাকারীকে পুলিশ আগে থেকেই চিনতো এবং তাদের বিরুদ্ধে অপরাধের রেকর্ড আছে। অর্থাৎ ব্রাসেলসে হামলাকারীদের তিনজনকেই আগে থেকে খুঁজছিল পুলিশ।

ব্রাসেলসের বিমানবন্দরের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে যুক্তরাষ্ট্রের তদন্তকারীরা জানান, ফুটেজে তিন সন্দেহভাজন হামলাকারীকে ব্যস্ত চেক ইন এলাকার দিকে বোমাভর্তি স্যুটকেস টেনে নিয়ে যেতে দেখা গেছে। এর আগে একটি ট্যাক্সিতে করে বিমানবন্দরে প্রবেশ করেন তারা। এরমধ্যে দুই সন্দেহভাজন সহোদর তাদের বাম হাতে কালো রংয়ের দস্তানা পরে ছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, ওই দুজন তাদের নখের আবরণে ঢাকা ডিভাইস ব্যবহার করে বিস্ফোরণটি চালিয়েছেন।

মার্কিন কর্মকর্তাদের দাবি, সিসিটিভির ফুটেজ বলছে নাজিম আগেই তার বোমাটি পরিত্যাগ করেছেন।

ইউরোপের মোস্ট ওয়ান্টেড এ ব্যক্তি সাদা কোট পরা ছিলেন। তার চোখে চশমা এবং মাথায় হ্যাট ছিল। কেউ কেউ আবার বলছেন, তৃতীয় সন্দেহভাজন তার বোমাটি বিস্ফোরিত না করতে পেরে তা রেখেই বিমানবন্দর থেকে পালিয়ে গেছেন।

এদিকে নৃশংসতা হওয়ার মাত্র কয়েক সেকেন্ড আগে সন্দেহভাজনরা তাদের স্যুটকেস চেক করতে দেন বলে নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় মেয়র ভারমেইরেন। তিনি বলেন, ‘তারা একটি ট্যাক্সিতে করে স্যুটকেসগুলো নিয়ে এসেছিলেন। তারা স্যুটকেসগুলো ট্রলিতে রাখেন, সেখানে প্রথম দুটি বোমা বিস্ফোরিত হয়। তৃতীয় ব্যক্তিও স্যুটকেসটি ট্রলিতে রাখেন। তবে সেটি বিস্ফোরিত না হওয়ায় তিনি খানিক আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।’

অপরদিকে ট্যাক্সিচালক পুলিশের কাছে দাবি করেছেন যে তিনি না জেনেই হামলাকারীদের বিমানবন্দরে পৌঁছে দেন। সন্দেহভাজনদের স্যুটকেসগুলো ধরে নামানোর জন্য সহায়তা করতে গেলে সন্দেহভাজনরা তাদের স্যুটকেস স্পর্শ করতে নিষেধ করেন। সূত্র: দ্য ইনডিপেনডেন্ট, ডেইলি মেইল, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, বিবিসি।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: M. Arman Hossain

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.