সোমবার ১৯ নভেম্বর ২০১৮
বিশেষ নিউজ

মন্ত্রীদের ‘সতর্ক’ থাকতে বলেছে পুলিশ


NEWSWORLDBD.COM - July 19, 2016

SecurityCheckPost_MintuRoadদেশে-বিদেশে সাম্প্রতিক জঙ্গি হামলার ঘটনায় উদ্ভুত পরিস্থিতিতে নিশ্চিন্ত হওয়ার অবকাশ কম থাকায় পুলিশ মন্ত্রীদের সাবধান করেছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালও বলেছেন, মন্ত্রীদের ওপর জঙ্গিরা যে কোনো সময় হামলা চালাতে পারে- এমন আশংকা প্রকাশ করে তাদের মোবাইল ফোনে এসএমএস পাঠিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

পুলিশের পক্ষ থেকে মন্ত্রীদের মোবাইলে এসএমএস পাঠিয়ে সাবধান করে দেওয়া হচ্ছে-এ খবরের বিষয়ে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, “যখনই যে তথ্যাদি আমাদের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী পান না কেন, প্রয়োজন অনুসারে সে সব তথ্য বিশেষভাবে নিরাপত্তার জন্য সরকারে আসীন আছেন, তাদের তারা জানান। সেই ধারাবাহিকতায় ডিএমপির কমিশনার আমাদেরকে জানিয়েছিলেন, যে তাদের কাছে ‘এই সংবাদ’ আছে। সেই সংবাদ অনুসারে আমরা যেন একটু সাবধান হই।”

তবে কি সেই ‘সংবাদ’, সেটি খোলাসা করেননি আইনমন্ত্রী।

নেপাল আইন কমিশনের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মঙ্গলবার নিজের দপ্তরে আলোচনার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা হয় আনিসুল হকের।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে আনিসুল হক বলেন, “ব্যাপারটা হচ্ছে, ১ জুলাই যে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এটাকে হালকাভাবে নেওয়ার কোনো অবকাশ নেই। এই ঘটনার থেকে আমরা বুঝতে পেরেছি, আমাদেরকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

গত ১ জুলাই হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার আগে গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য ছিল বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তবে তিনি বলেছেন, কোথায় হামলা হবে, তা নিশ্চিত ছিলেন না তারা।

সতর্কতার কারণে মন্ত্রীরা চলাফেরা সঙ্কুচিত করছে কি না- এ প্রশ্নে আনিসুল বলেন, “দেখেন, সঙ্কুচিত বলব না। এরপরও শহীদ মিনারে র‌্যালি হয়েছে। ২০-২১ তারিখ আবার সেই র‌্যালি হবে। এগুলো করার সময় যতটুকু সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন, ততটুকু সাবধানতা যেন অবলম্বন করা হয়।”

তবে নিজে এখনও শঙ্কা বোধ করছেন না বলে জানান আইনমন্ত্রী।

মন্ত্রীদের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে কি না- এ প্রশ্নে আনিসুল বলেন, “আমার মনে হয় না যে আমাদের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। যা আছে, তা আমরা মনে করি পর্যাপ্ত আছে।

আইনমন্ত্রী বলেন, “সারা দেশের লোককে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য যা করা প্রয়োজন, যে জনবল নিয়োগ করা প্রয়োজন, সেটা করা হচ্ছে। আমার মনে হয় যে, এই থ্রেটটা অনেকটা কমে এসেছে।”

হামলা হোক বা না হোক, সাবধান হওয়ার উপর জোর দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের এই আইনমন্ত্রী বলেন, “এটা আপনারা দেখেছেন, ফ্রান্সে কী ঘটেছে, ইউএসএ-তে কী ঘটছে। সেইক্ষেত্রে আমরা মনে হয়, আমাদের কিন্তু নিশ্চিত হওয়ার অবকাশ খুব কম। সেই জন্য আমরা সাবধানতা অবলম্বন করছি। সকলকে সাবধানতা অবলম্বন করতে আমরা অনুরোধ করছি।”

এদিকে গতকাল সোমবার রাতে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্য ও সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালানো হতে পারে- এমন তথ্য দিয়েছে একটি গোয়েন্দা সংস্থা। গোয়েন্দা সংস্থার দেয়া এ প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রিসভার সব সদস্য ছাড়াও সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সতর্কভাবে চলাফেরার জন্য বলা হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের নিরাপত্তার জন্য নিয়োজিত গানম্যান ও হাউস গার্ডকে সতর্কাবস্থায় থাকার জন্য ব্রিফ করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত এ নির্দেশ বলবৎ থাকবে।

উল্লেখ্য, মন্ত্রিপরিষদ সদস্যদের কাছে পাঠানো ডিএমপি কমিশনারের ওই এসএমএসে সালাম জানিয়ে বলা হয়, ‘গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী, যে কোনো সময় যে কোনো মন্ত্রীর ওপর জঙ্গিগোষ্ঠী হামলা চালাতে পারে। এ ব্যাপারে আমরা সংশ্লিষ্ট সবাইকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছি। অনুগ্রহ করে সতর্ক থাকবেন এবং আপনার গানম্যান ও নিরাপত্তা দলকে বিষয়টি অবহিত করবেন।’

এর আগে ১১ জুলাই ও সোমবার অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রীদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন।

১ জুলাই গুলশানের ৭৯ নম্বর সড়কে হলি আর্টিজান বেকারি অ্যান্ড রেস্টুরেন্টে ও ঈদের দিন কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় ঈদগাহে হামলার ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে আইনশৃংখলা বাহিনী। হলি আর্টিজানে ১৭ বিদেশীসহ ২০ জনকে গুলি ও কুপিয়ে হত্যা করে জঙ্গিরা। রাতভর জিম্মি করে রাখে অতিথি ও রেস্টুরেন্টটির কর্মচারীদের। ২ জুলাই সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে কমান্ডো অভিযান চালিয়ে জিম্মিদের উদ্ধার করা হয়। ওই সময় সন্দেহভাজন একজনসহ ৬ জঙ্গি নিহত হয়। এর রেশ কাটতে না কাটতেই শোলাকিয়া ঈদগাহের অদূরে হামলা চালায় জঙ্গিরা। এতে পুলিশ সদস্যসহ তিনজন নিহত হন এবং পুলিশের গুলিতে এক জঙ্গি সদস্য মারা যায়। এ দুই ঘটনার পর রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্পর্শকাতর এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ আইনশৃংখলা রক্ষায় ঢাকা মহানগরে পেট্রোলিং, চেকপোস্ট, ব্লক রেইড, তল্লাশি অভিযান, দৃশ্যমান-অদৃশ্যমান পুলিশি ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি স্থায়ী চেকপোস্ট করে সন্দেহভাজনদের তল্লাশি করা হচ্ছে। ঢাকার কূটনৈতিকপাড়াসহ বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে আইনশৃংখলা বাহিনী। পাশাপাশি বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা নজরদারি।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: Anwarul Karim Raju

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.