রবিবার ২১ অক্টোবর ২০১৮
বিশেষ নিউজ

সামাজিক যোগাযোগের চেয়ে আসক্তি বাড়াচ্ছে ফেসবুক


NEWSWORLDBD.COM - August 16, 2016

download (1)সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বাংলাদেশীদের অ্যাকাউন্ট সংখ্যা ২ কোটি ১০ লাখ ছাড়িয়েছে। এসব অ্যাকাউন্টধারীর প্রায় ৬০ শতাংশের বয়স ১৮-২৪ বছরের মধ্যে। এসব তরুণের অনেকেই ভুয়া অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ফেসবুক ব্যবহার করছেন। এ অবস্থায় ফেসবুকের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ যতটা না, তার চেয়ে বাড়ছে আসক্তি। সম্প্রতি জার্নাল অব সাইকিয়াট্রিতে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

গত বছর পরিচালতি এক জরিপের ভিত্তিতে এ গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ওএমআইসিএসের সাময়িকীটি। এতে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিককালে ফেসবুকের আসক্তির বিষয়টি উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সময় ও অর্থের অপচয়। জরিপে অংশ নেয়া ব্যবহারকারীর ২০ শতাংশই মনে করছেন, তারা ফেসবুকে আসক্ত।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে ১৩ বছরের কম বয়সী শিশুরাও ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট খুলছে। যদিও ফেসবুকের অ্যাকাউন্ট খোলার নীতিমালা অনুযায়ী ১৩ বছরের কম বয়সীদের ক্ষেত্রে ব্যবহারে বিধিনিষেধ রয়েছে। কিন্তু মিথ্যা তথ্য দিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলছে শিশুরা। জরিপে অংশ নেয়া ১৪ শতাংশই ১৩ বছর বয়সের আগে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার শুরু করে। বয়স বাড়ার আগেই ফেসবুক ব্যবহার শুরু করা এসব শিশুর অনেককেই নেতিবাচক অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হতে হয়। এর প্রভাব পড়ে তাদের শিক্ষা কার্যক্রমেও। রাজধানীর শিশুদের অনেকেই বাসায় সময় কাটায় মূলত ইন্টারনেট ব্রাউজিং, ফেসবুক ব্যবহার, ভিডিও গেম খেলে অথবা টেলিভিশন দেখে। এসব শিশুই তুলনামূলকভাবে সাইবার বুলিং, পর্নো আসক্তি ও অনলাইন গ্যাম্বলিংয়ের ঝুঁকিতে রয়েছে।

এ বিষয়ে টেলিসাইকিয়াট্রি বিশেষজ্ঞ তানজির রশিদ বলেন, ফেসবুক ব্যবহারের ক্ষেত্রে উদ্বেগের বিষয় হলো, অনেকেই এতে আসক্ত হয়ে পড়ছেন। ঘুম থেকে ওঠার পর ফেসবুক ব্যবহারের শুরু, এর পর তা শেষ হয় ঘুমানোর আগে। অর্থাত্ জেগে থাকার পুরোটা সময়ই ফেসবুকের সঙ্গে যুক্ত থাকছেন তারা। এতে অন্য কাজে সময় দিচ্ছেন কম। এছাড়া কম বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রেও এর ব্যবহার রয়েছে, যা তাদের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

ফেসবুকের তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশে এ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীর ৭৮ শতাংশই পুরুষ। বাকি ২২ শতাংশ নারী। পুরুষদের ৫৬ শতাংশই ১৮-২৪ বছর, ৩২ শতাংশ ২৫-৩৪ বছর, ৮ শতাংশ ৩৫-৪৪ বছর, ২ শতাংশ ৪৫-৫৪ বছর, দশমিক ৬ শতাংশ ৫৫-৬৪ বছর ও দশমিক ৬ শতাংশ ৬৫ বছরের বেশি বয়সী।

অন্যদিকে ফেসবুকের নারী ব্যবহারকারীর ৬৯ শতাংশই ১৮-২৪ বছর বয়সী। ব্যবহারকারীদের ২৪ শতাংশ ২৫-৩৪ বছর, ৫ শতাংশ ৩৫-৪৪ বছর, ২ শতাংশ ৪৫-৫৪ বছর, দশমিক ৫ শতাংশ ৫৫-৬৪ বছর ও দশমিক ৬ শতাংশ ৬৫ বছরের বেশি বয়সী।

গবেষণা বলছে, নিজেদের পোস্টে লাইক ও কমেন্ট দেখতেই বেশির ভাগ সময় সামাজিক যোগাযোগের এ মাধ্যমটিতে প্রবেশ করেন ব্যবহারকারীরা। ফেসবুকে ছবি আপলোডের ক্ষেত্রে এগিয়ে নারীরা। পুরুষের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ সংখ্যক ছবি আপলোড করেন তারা। দেশে ব্যবহারকারীরা গড়ে ১১টি পেজে লাইক দেন। প্রতি মাসে একজন ব্যবহারকারী দুটি কমেন্ট, সাতটি পোস্টে লাইক ও একটি পোস্ট শেয়ার দেন। ওই সময়ের মধ্যে তিনটি অ্যাডে ক্লিক করেন ব্যবহারকারী। বৈশ্বিক গড়ের প্রায় সমান দেশের ব্যবহারকারীদের এ প্রবণতা।

তথ্যপ্রযুক্তিবিদ ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, আসক্তির এ বিষয়টি শুধু বাংলাদেশেই নয়, সারা বিশ্বে রয়েছে। নগরকেন্দ্রিক বন্দি জীবনে থাকা শিশুরা যোগাযোগের জন্য ফেসবুক ব্যবহার করছে।

তবে ফেসবুকের ইতিবাচক অনেক দিক রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এগুলো সম্পর্কে ব্যবহারকারীদের জানানো প্রয়োজন। শিশুদের সচেতন করে তোলা ও ফেসবুকের ভালো-মন্দ সম্পর্কে জানাতে হবে। আর ফেসবুকের মাধ্যমে যেসব নেতিবাচক প্রচারণা ছড়ানো হয়, তা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব সরকারের।

২৫ শতাংশ ব্যবহারকারীর রয়েছে একাধিক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট। বিভিন্ন ধরনের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে আলাদা আলাদা অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছেন তারা। মূলত অবিবাহিত ও বেকারদের মধ্যে একাধিক অ্যাকাউন্ট তৈরির প্রবণতা লক্ষ করা যায় বলে গবেষণায় উল্লেখ করা হয়েছে। তরুণরা সমাজবিরোধী ও রাজনৈতিক প্রচারণা চালানোর ক্ষেত্রে ব্যবহার করছে ভুয়া অ্যাকাউন্ট।

সেলফোন অপারেটর গ্রামীণফোন পরিচালিত এক গবেষণায় উঠে এসেছে, ইন্টারনেট ব্যবহার করেন, এমন শিক্ষার্থীদের ৭০ শতাংশই ইন্টারনেট-সংশ্লিষ্ট কোনো সমস্যায় সাহায্য বা দিকনির্দেশনা পান না। এছাড়া শিক্ষার্থীদের ৩০ শতাংশের বেশি উত্ত্যক্তকারীদের অশোভন বার্তা পেয়েছেন, যা সাইবার বুলিং নামে পরিচিত।

সবচেয়ে বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছেন ঢাকা বিভাগে। এ বিভাগে ৬১ শতাংশ ফেসবুক ব্যবহারকারীর অবস্থান। চট্টগ্রামে ৯ শতাংশ, সিলেটে ৩, কুমিল্লায় ২, রাজশাহীতে ২ ও খুলনায় ১ শতাংশ ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছেন। দেশে ৫৪ শতাংশই ইংরেজি (ইউএস) ভাষায় ফেসবুক ব্যবহার করছেন। এছাড়া ৩৭ শতাংশ ইংরেজি (ইউকে) ও ৮ শতাংশ বাংলায় এ যোগাযোগ মাধ্যমটি ব্যবহার করে।

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর মতো সিংহভাগ ফেসবুক ব্যবহারকারীও সেলফোনেই এ যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করছেন। মোট ব্যবহারকারীর ৭৮ শতাংশ শুধু সেলফোনে ফেসবুক ব্যবহার করেন। শুধু ডেস্কটপ কম্পিউটার ব্যবহার করছেন ৪ শতাংশ ফেসবুক অ্যাকাউন্টধারী। আর ১৮ শতাংশ সেলফোন ও ডেস্কটপে এটি ব্যবহার করেন। এছাড়া সেলফোনে ব্যবহারকারীদের ২৮ শতাংশ অ্যান্ড্রয়েড, ৩১ শতাংশ মোবাইল ওয়েব ও ২৮ শতাংশ ফিচার ফোনে ফেসবুক ব্যবহার করছেন।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: Anwarul Karim Raju

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.