সোমবার ২৩ অক্টোবর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » বিশেষ নিউজ 2 » সরকারি কর্মকর্তাকে রাস্তায় তল্লাশির নামে পুলিশের যাচ্ছেতাইভাবে নাজেহাল
বিশেষ নিউজ

সরকারি কর্মকর্তাকে রাস্তায় তল্লাশির নামে পুলিশের যাচ্ছেতাইভাবে নাজেহাল


NEWSWORLDBD.COM - September 9, 2016

তল্লাশির নামে পুলিশের যাচ্ছেতাইভাবে নাজেহালএখন আমার প্রশ্ন হল- ইচ্ছে করলেই পুলিশ সাধারণ নাগরিককে নাজেহাল করার ক্ষমতা ধারণ করে কিনা?

এহসানুর রহমান

আমার পরিবারের সবার পাসপোর্ট ডেলিভারি নিয়ে আগারগাঁও থেকে রিকশাযোগে লালমাটিয়ার দিকে যাওয়ার পথে বজ্র কণ্ঠে–এই রিকশা দাড়াও, শুনে রিকশা থামালাম, তখন বিকেল ৪টা। তারপরই শুরু হাসির কিন্তু চরম বিরক্তিকর নাটকের! ৫ সদস্যের টহল পুলিশের দল ঘিরে ধরলো আমাকে, উদ্দেশ্য চেক করবে, আমি তাদের দিকে বাড়িয়ে দিলাম সহযোগিতার হাত- নিজেই পকেট থেকে বের করে দিলাম সবকিছু, কিন্তু তারা সন্তুষ্ট নন। নিজেরাই হাত ঢুকিয়ে চেক করবে, রাজী হলাম। ভাগ্যিস প্যান্টের বেল্ট পরা ছিলো, না হলে ইজ্জতের দফা-রফা হয়ে যেত।

আমার পকেটে যা ছিল তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হল ৪টি পাসপোর্ট- যেগুলো বের করে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই একজন কনস্টেবল খপ করে আমার এক হাত ধরে ফেললো এমনভাবে যেন জঙ্গি তামিম চৌধুরীর সেকেন্ড-ইন-কমান্ডকে ধরে ফেলেছে! পরিচয় জিজ্ঞাসা করায় আমার প্রথম শ্রেণির সরকারি চাকরির পরিচয়ে তাদের সন্দেহ ঘনীভূত হয়ে কালো মেঘের আকার নিল, এমন সময় আরো তিনজন আনসার দলে যোগ দিয়ে শক্তিবৃদ্ধি করল।

শুরু হল জেরা- আপনার কাছে এতগুলো পাসপোর্ট কেন? আমি উত্তর দিলাম- এইমাত্র ডেলিভারি নিয়ে আসলাম। এগুলোসহ আপনাকে থানায় নিয়ে যাচাই-বাছাই করতে হবে? আমি জিজ্ঞেস করলাম- কেনো, এই দায়িত্ব কি আপনাদের? পুলিশের উত্তর- এতগুলা পাসপোর্ট নিয়ে চলাফেরা করার আইন নাই। আমি তাদের বললাম- এগুলো তো আমার স্ত্রী-সন্তানদের। দেশে কোন আইনে আছে পাসপোর্ট নিয়া চলা-ফেরা করা যাবে না?

ইতোমধ্যে একজন-দু’জন করে পাবলিক জড়ো হওয়া শুরু করেছে। পুলিশ আমাকে বলছে- এরা যে আপনার পরিবার তার প্রমাণ কি? পাসপোর্টগুলোতে স্বামী এবং বাবা হিসাবে আমার নাম আছে, এছাড়া আমার পাসপোর্টও এখানে আছে, আর কি প্রমাণ তাদের লাগবে জানতে চাইলাম? তারপরও তারা আমাকে জানালো এগুলো থানায় গিয়ে যাচাই হবে। আমার পকেটে টাকা দেখে এবার পুলিশ সদস্যগণ আমাকে জিজ্ঞেস করল- আপনার পকেটে এতো টাকা ক্যান (সব মিলিয়ে ৫০০০ এর মতো হবে)? মাত্র ৫০০০ টাকা, এটা বহন করা নিষেধ নাকি? তারা আমাকে জিজ্ঞেস করলো এই টাকা কোথায় পাইছেন?

এবার আমি তাদের বললাম আমার জরুরী একটা কাজ আছে, আপনারা আমার সময় নষ্ট করছেন এবং আমাকে বিনা কারণে নাজেহাল করছেন। আমার সরকারি পরিচয়ে আপনাদের সন্তুষ্ট হওয়ার কথা ছিল। এর জবাবে তারা আমাকে জানালো- আপনি সরকারি অফিসারই হোন আর ভিআইপি হোন এগুলা দেওয়া যাবে না। তারপর আমকে জেরার সুরে জিজ্ঞেস করলো- আচ্ছা আপনি বললেন এইমাত্র ডেলিভারি আনছেন, ডেলিভারি স্লিপ দেখান! আমি তখন হাসবো না কাইন্দা দিবো বুঝতে পারছিলাম না, এত জাঁদরেল পুলিশ অথচ তারা জানেই না যে- ডেলিভারি স্লিপ জমা নিয়াই পাসপোর্ট ডেলিভারি দেয়!

এরইমধ্যে উৎসাহী জনতা পরামর্শ দিলো পাসপোর্টগুলোর তথ্যগুলো আমি না দেখে বলতে পারি কিনা তা পরীক্ষা করলেই ঝামেলা মিটে যায়। আমি তাদের সহযোগিতায় মুগ্ধ, কারণ অনেকেই বুঝে গেছে পুলিশ অন্যকিছুর আশায় ঝামেলা করছে, তাই তারা আগ বাড়িয়ে আমাকে সাহায্য করার চেষ্টা করছে। শুরু হলো নতুন করে জিজ্ঞাসাবাদ। একজন কনস্টেবল পিএসসি-র চেয়ারম্যানের ভাব নিয়ে প্রশ্ন শুরু করলো। সবগুলোর সঠিক উত্তর দিয়ে যখন আমিও বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার ভাব ধরতে যাবো তখনই বাধলো বিপত্তি- শেষ প্রশ্নে গিয়ে গেলাম আটকে! প্রশ্ন ছিলো- আপনার শ্বশুরের নাম? আমি বললাম- চাঁন মিয়া। সেই চেয়ারম্যান ভাবধারী পুলিশ চিৎকার করে বললো- স্যার ধরা খাইসে, পুরা মুখস্থ করতে পারে নাই। এসআই তার জুনিয়রকে বললো- ক্যান? মিলে নাই? চেয়ারম্যান ভাবধারী কনস্টেবল- না স্যার নামের শুরুতে “ল্যাটা” আছে সেইটা বলতে পারে নাই, ভুইলা গেছে।

আপনারা নিশ্চয়ই জানান MRP-তে সকল তথ্য ইংরেজিতে লেখা থাকে, সেই মতো আমার শ্বশুরের নাম লেখা- Late Chan Mia! আমাকে প্রশ্নকারী চেয়ারম্যান ভাবধারী পুলিশ সাহেব Late মানে “প্রয়াত” কে “ল্যাটা” ভেবে এটিকে নামের অংশ ধরে নিয়ে আমার ভুল ধরে ফেলেছেন- বুঝতেই পারছেন বিদ্যার টাইটানিক এক একজন! আমি তখন তাকে বললাম ভাইয়া এটা ল্যাটা হবে না, লেট হবে মানে প্রয়াত! ইতোমধ্যেই প্রায় ৩০ মিনিট পেরিয়ে গেছে এবং উপস্থিত জনতার মধ্যে এক ধরনের অসন্তোষ দেখা দিয়েছে, পরিস্থিতির অবনতি আচ করতে পেরে তারা আমাকে বিদায় দেয়।

এখন আমার প্রশ্ন হল-
১. আমাদের দেশে নিজের এবং পরিবারের সদস্যদের পাসপোর্ট বহন করা কোনো আইন দ্বারা নিষিদ্ধ কিনা?

২. ৫০০০ টাকা সাথে বহন করার জন্য পুলিশের আগাম অনুমতি লাগে কিনা?

৩. ইচ্ছে করলেই পুলিশ সাধারণ নাগরিককে নাজেহাল করার ক্ষমতা ধারণ করে কিনা?

৪. পথে-ঘাটে পাসপোর্ট যাচাই-বাছাই করার দায়িত্ব/ক্ষমতা/যোগ্যতা পুলিশের আছে কিনা?

৫. প্রথম শ্রেণির সরকারি চাকুরে পরিচয় পাওয়ার পরও ৩য় শ্রেণির পদ মর্যাদাধারী এইসব পুলিশ এভাবে নাজেহাল করার অধিকার বহন করে কিনা?

যদি এগুলো সবগুলোর উত্তর না বোধক হয় তবে আমার সাংবাদিক বন্ধুদের অনুরোধ করবো বিষয়টি পুলিশের উপর মহলের নজরে আনুন। এদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হন, ওই সড়কে চলাচলকারীদের সতর্ক করুন, কারণ পরে আমাকে বহনকারী স্থানীয় রিকশা চালকের কাছে শুনেছি এটি ওই স্থানের নিয়মিত ঘটনা।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor-In-Chief & Publisher: AHM Anwarul Karim

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
43/B/1, East Hazipara, Rampura
Dhaka-1219, Bangladesh.