বৃহস্পতিবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বিশেষ নিউজ

কৌশলের রাজনীতিতে বিএনপি, মাঠে নামবেন খালেদা জিয়া


NEWSWORLDBD.COM - September 20, 2016

bnpসরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনের অনেক ইস্যু থাকলেও কঠোর কোন কর্মসূচি না দেওয়ার কৌশল নিয়েছে সংসদের বাহিরে থাকা প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। তাদের টার্গেট এখন দল গোছানো ও গণসংযোগ করে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করা। আইনশৃঙ্খলার অবনতি, উগ্রবাদ, জঙ্গিবাদ, সরকারদলীয় লোকদের চাঁদাবাজিসহ, পৌরসভা, সিটি করপোরেশন ও ইউপি নির্বাচনে কিভাবে কারচুপি করা হয়েছে গনসংযোগের মাধ্যমে তা জনগণকে জানানোর নীতি দিয়েছে দলটি। এ বিষয়গুলো নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে মাঠে নামবে বিএনপি।

এ বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশের সংকট নিরসনে গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের বিকল্প নেই। একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য এই সরকারকে হঠাতে হবে। এ লক্ষে শিগগির বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মাঠে নামবেন। দেশব্যাপী তিনি গণসংযোগ শুরু করবেন। আর এই গণসংযোগের মধ্য দিয়েই ফ্যাসিস্ট সরকারের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন শুরু হবে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠনের পক্ষে জনমত সৃষ্টি করে সরকারের ওপর চাপ বাড়ানোর বিষয়ে একমত হয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান। দেশে ফিরে খালেদা জিয়ার মূল ইস্যু হবে স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য জনমত সৃষ্টি করা। তবে জানা গেছে বেগম জিয়া হজ থেকে দেশে ফিরে ৪০ দিন পর্যন্ত কোনও গণসংযোগে নামবেন না। নভেম্বরের শেষ দিকে রামপাল ও জঙ্গিবাদ ইস্যুতে কয়েকটি বিভাগীয় শহরে সমাবেশ করবেন।

সৌদি আরবে হজের আনুষ্ঠানিকতা পালনের ফাঁকে ফাঁকে মা ও ছেলের মধ্যে দলের ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা হয়। সেখানেই স্বাধীন নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনসহ নানা বিষয় উঠে আসে। সৌদি আরব সূত্রে এসব বিষয় জানা গেছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নতুন নির্বাচন আদায়ের দাবিতে চূড়ান্ত আন্দোলনে যাওয়ার পূর্বে নতুন কৌশল হিসেবেই গণসংযোগের ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে। জেলা পর্যায়ে জনসভা, পথসভাসহ অন্যান্য গণসংযোগ কর্মসূচির মাধ্যমে দলের নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করে চূড়ান্ত আন্দোলনের কর্মপরিকল্পনা সাজানো হবে। গণসংযোগের পর পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে পরবর্তী কর্মসূচি নির্ধারণ করতে চাইছে বিএনপি হাইকমান্ড।

দলের হাইকমান্ড মনে করে, স্বাধীন নির্বাচন কমিশনের দাবিকে বানচালের জন্য সরকার নানাভাবে চেষ্টা চালাতে পারে। এর অংশ হিসেবে এ ইস্যুতে বিএনপি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দেওয়ার জন্য নীলনকশা আঁটতে পারে। তবে সে ব্যাপারে তারা সতর্ক থাকবেন। তারা মনে করেন, কার অধীনে আগামী নির্বাচন হবে তা এই মুহূর্তে ভাবার সময় নেই। নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের নিয়ামক হচ্ছে স্বাধীন কমিশন। তাই সরকারকে চাপে রেখে স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠন করা সম্ভব হলে ভবিষ্যতে ভোট রক্ষা করা সম্ভব হবে। তাই সৌদি আরব থেকে ফেরার পর চেয়ারপারসন এটাকেই মূল ইস্যু করে সামনের দিকে এগিয়ে যাবেন বলে মনে করছেন দলটির নীতিনির্ধারকরা।

সূত্র জানায়, হজের সময় সৌদি আরবে এসব বিষয়সহ দলের আগামী দিনের কর্মপরিকল্পনা নিয়ে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। এর পাশাপাশি আপাতত সরকারবিরোধী কঠোর আন্দোলনে না গিয়ে উভয়েই দল গোছানোকেই অগ্রাধিকার দেন। তৃণমূল পুনর্গঠনের পাশাপাশি ঘোষিত কমিটিতে রদবদল নিয়েও তারা ঐকমত্যে পৌঁছেন। পাশাপাশি যুবদল, মহিলা দল, স্বেচ্ছাসেবক দল, কৃষক দল ও ঢাকা মহানগর বিএনপি দ্রুত পুনর্গঠন নিয়েও তাদের মধ্যে আলোচনা হয়। পুনর্গঠন করতে গিয়ে যে কোনো মূল্যে ‘এক নেতার এক পদ’নীতি বাস্তবায়নের ওপর জোর দেন তারেক রহমান। বিএনপি চেয়ারপারসন দেশে ফিরে সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে এসব বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন।

৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং লন্ডন থেকে তারেক রহমান সৌদি আরবের উদ্দেশে রওনা হন। ইতোমধ্যে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে তারা হজ পালন করেছেন। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ২২ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়ার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

জানতে চাইলে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও তৃণমূল পুনর্গঠনের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, পবিত্র হজ পালনের জন্য তারা সৌদি আরব গেছেন। পরিবারের সব সদস্য একসঙ্গে ভালো একটা সময় পার করছেন। এখানে রাজনৈতিক বিষয়ে বড় ধরনের আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা কম। তারপরও শীর্ষ দুই নেতার সাক্ষাতে দলীয় এবং রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে একেবারে যে আলোচনা হবে না তা ঠিক নয়। কিছু বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে হজে যাওয়া এক নেতা বলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণার পর নেতাদের নানা প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। কমিটি রদবদলের আগে এক নেতার এক পদ নীতি বাস্তবায়নে আরও কঠোর হওয়ার বিষয়ে একমত হন তারা। এটা আগে বাস্তবায়ন করে তারপর তৃণমূল পুনর্গঠনে জোর দিতে বলেন তিনি। এছাড়া দ্রুত সময়ে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কমিটি দেওয়ার ব্যাপারেও তাদের মধ্যে কথা হয়।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: M. Arman Hossain

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.