শুক্রবার ২০ অক্টোবর ২০১৭
বিশেষ নিউজ

বজ্রপাতে একই পরিবারের ৩ জনসহ নিহত ৫


NEWSWORLDBD.COM - September 20, 2016

বজ্রপাতে একই পরিবারের ৩ জনসহ নিহত ৫টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় বজ্রপাতে একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো একজন। মঙ্গলবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত তিনজন হলেন—উপজেলার মাগুনতিনগর গ্রামের আদিবাসী পল্লীর বাসিন্দা নিখিল হাজং (৩৫) এবং তাঁর দুই ছেলে জজ সিং সাং (১০) ও লোটন সিং সাং (৮)।

আহত ব্যক্তির নাম জনতা সিং সাং। তাঁকে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, ওই চারজন ঘরেই ঘুমিয়েছিলেন। ভোরে হঠাৎ বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তাঁরা হতাহত হন।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় বজ্রপাতে দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো পাঁচজন।

দিরাই উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের মাটিয়াপুর হাওরে এ ঘটনা ঘটে।

বজ্রপাতে নিহত দুজন হলেন মাটিয়াপুর গ্রামের আবদুল হান্নানের ছেলে শামীম মিয়া (৪৫) ও একই গ্রামের আবদুল হাসিমের ছেলে তহুর মিয়া (৩৫)।

আহত ব্যক্তিরা হলেন মাটিয়াপুর গ্রামের হাফিজ আলীর ছেলে মো. হামিদ মিয়া, সঞ্জিব আলীর ছেলে রুবেল মিয়া, রহমত আলীর ছেলে মো. ফারুক মিয়া, আবদুল হেকিমের ছেলে হুসেন মিয়া ও নিয়ামত আলীর ছেলে ছুরত মিয়া। তাঁদের সবাইকে প্রথমে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। তাঁদের মধ্যে অবস্থা গুরুতর হওয়া হামিদ মিয়া ও রুবেল মিয়াকে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দিরাই উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের মাটিয়াপুর গ্রামের হাওরে নৌকা দিয়ে বাঁশ আনতে যাচ্ছিলেন আট-নয়জন। সকাল থেকেই ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে বজ্রপাত হচ্ছিল। তাঁদের নৌকার ওপর বজ্রপাত হলে শামীম মিয়া ও তহুর মিয়া ঘটনাস্থলেই নিহত হন। নৌকায় থাকা ব্যক্তিদের মধ্যে আরো পাঁচজন আহত হন।

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল জলিল বলেন, বাঁশ আনতে গিয়ে দুই ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। তাঁদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Chief Editor & Publisher: A. K. RAJU

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: 9635272, 01787506342

©Titir Media Ltd.
39, Mymensingh Lane (2nd Floor), Banglamotor
Dhaka, Bangladesh.