বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮
বিশেষ নিউজ

৩৪ বছরে মোশাররফের পুনর্জন্ম!


NEWSWORLDBD.COM - October 2, 2016

aa5ef9c2b027544b29193dbef5927800-57eff086a73f9ঘরোয়া ক্রিকেটে দারুণ প্রার্থিত খেলোয়াড় তিনি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট কিংবা ক্লাব ক্রিকেট দল গঠনের সময় সব দলই মোশাররফ হোসেনের কথা একবার অন্তত ভাবে। কারণ, আর কিছুই নয়, তাঁর পারফরম্যান্স। ঘরোয়া ক্রিকেটের উইকেটে তাঁর কার্যকারিতা। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে যে ক্রিকেটারের ঝুলিতে আছে ৩৩৯টি উইকেট, সে ক্রিকেটার তো প্রার্থিত হবেনই।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোশররফের ক্যারিয়ারের চিত্রটা ঠিক উল্টো। ২০০৮ সালের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হওয়ার পর কেটে গেছে আট বছর। এই আট বছরে তাঁকে পার হতে হয়েছে অনেক চড়াই-উতরাই। অভিষিক্ত হওয়ার কয়েক মাসের মধ্যেই ভারতে বিদ্রোহী ক্রিকেট লিগ খেলতে গিয়ে নিজের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারকেই অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দিয়েছিলেন। দশ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন।

বিদ্রোহী লিগ খেলতে যাওয়া ক্রিকেটারদের অনেকেই পরবর্তী সময়ে মূল ধারায় ফিরে আসলেও মোশাররফের আর ফেরা হয়নি। তাঁর সহযাত্রীরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ফিরেছেন। পারফরম করেছেন, কিন্তু মোশাররফ ব্রাত্যই রইলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। ঘরোয়া ক্রিকেটে দিনের পর দিন পারফরম করেও জাতীয় দলের দরজা খুলতে পারেননি এই বাঁ হাতি স্পিনার।

কিন্তু সেই মোশাররফের ভাগ্যটাই খুলে গেল ৮ বছর পর। আফগানিস্তানের বিপক্ষে জাতীয় দলের একাদশে ফিরলেন। ব্যাট হাতে যা-ই করুন, বল হাতে ঘরোয়া ক্রিকেটের সেই দুর্দান্ত মোশাররফকেই যেন পেয়ে গেল বাংলাদেশ। ২৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে মোশাররফ যেন প্রমাণ করলেন নিজের পরিপক্বতা। পোড় খাওয়া সৈনিকের মতোই যেন মেলে ধরলেন নিজেকে।

গত আগস্ট মাসেই ঘুরতে শুরু করে তাঁর ভাগ্যের চাকা। ভারতের সাবেক বাঁ হাতি স্পিনার ভেঙ্কটপতি রাজুই তাঁর ভাগ্য বদলের নিয়ামক। রাজু আগস্টে ঢাকা এসেছিলেন স্পিনারদের জন্য দশ দিনের একটি প্রশিক্ষণ ক্যাম্পের প্রশিক্ষক হয়ে। সেখানেই মোশাররফকে আলাদা করেই চোখে পড়ে তাঁর। আলাদা মনোযোগে পরখ করেন তাঁকে। জাতীয় দলের কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে বলে যান তাঁর কথা, বলে যান আলাদা নজর দিতে। রাজুর দৃষ্টিতে মোশাররফ হচ্ছে, যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সুযোগ না পাওয়া দুর্ভাগা এক বাঁ হাতি স্পিনার।

এক সময় বাঁ হাতি স্পিনারের ছড়াছড়ি ছিল যে দেশের ক্রিকেটে, সেখানে হঠাৎ করেই কেন যেন আকাল। জাতীয় দলে সাকিব আল হাসানের সঙ্গে জুটি বেঁধে প্রতিপক্ষের উইকেট তুলে নেওয়ার যোগ্যতর বোলার এখন হাতে-গোনা দু-একজন। আরাফাত সানি কিংবা তাইজুল। খুব বেশি হলে মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী। আবদুর রাজ্জাক ব্রাত্য হয়ে যাওয়ায় বাঁ হাতি স্পিন বিভাগে বেছে নেওয়ার সুযোগও সংকুচিত হয়ে এসেছে। রাজুর পরামর্শ অনুযায়ী মোশাররফ তাই হাথুরুর জন্য মহার্ঘ কিছুই হয়ে এসেছেন।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম দুই ওয়ানডের স্কোয়াডে ছিলেন না। দলে থেকে তেমন কিছুই করতে পারেননি তাইজুল। তৃতীয় ওয়ানডেতে তাই পত্রপাঠ ডাক পড়ল তাঁর। ৩৪ বছর ৩১৬ দিন বয়সে, ৮ বছর পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে নেমে নিজেকে নতুন করেই চেনালেন মোশাররফ।

শেষ যখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছিলেন, তখন তাঁর বয়স ২৬। কাল বিকেলে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ব্যাট হাতে যখন মাঠে নামলেন, তখন তিনি বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি সময় বিরতি দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার রেকর্ডের অধিকারী। পেছনে ফেলেছেন ফারুক আহমেদকে। সদ্যই সাবেক হয়ে যাওয়া জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ফারুক আহমেদ ১৯৯০ সালের ডিসেম্বরে কলকাতায় শ্রীলঙ্কার হয়ে ওয়ানডে খেলার পর পরের ওয়ানডেটা খেলেছিলেন ১৯৯৯ সালের মে মাসে, বিশ্বকাপের আসরে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে। ফারুক খেলেছিলেন ৮ বছর ১৪৪ দিন পর। ৮ বছর ২০০ দিন পর খেললেন মোশাররফ।

ভাগ্যিস হাল ছেড়ে দেননি তিনি। মোশররফ এই বার্তাও দিলেন, লড়ে লড়ে বারবার হেরে গেলেও হাল ছাড়তে নেই। হাল ছেড়ো না বন্ধু…।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: Anwarul Karim Raju

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.