শুক্রবার ২০ অক্টোবর ২০১৭
বিশেষ নিউজ

এমপি লিটন হত্যায় আওয়ামী লীগ নেতা গ্রেপ্তার


NEWSWORLDBD.COM - January 8, 2017

গাইবান্ধা-১ আসনের সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যার ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তির নাম আহসান হাবিব ওরফে কিলার মাসুদ। মাসুদ সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা।

রোববার ভোর রাতে সুন্দরগঞ্জ সদরের নিজ বাড়ি থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিয়ার রহমান টেলিফোনে জানান, গ্রেফতার হওয়া আহসান হাবিব ওরফে কিলার মাসুদ সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান। তিনি আগে জাসদের রাজনীতি করতেন। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে একটি অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে কিলার মাসুদ স্বেচ্ছাসেবক লীগে যোগদান করে।

ওসি জানান, তবে নিহত সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন কিলার মাসুদের আওয়ামী লীগে যোগদান মেনে নেননি। এই কারণে এমপি মহোদয়ের সঙ্গে তার বিরোধ চলে আসছিল।

তিনি বলেন, এই বিরোধ অনেক ক্ষেত্রে প্রকাশ্যে দেখা দেয়। তাই এমপি হত্যার ঘটনায় কিলার মাসুদ সন্দেহের তালিকায় ছিল। এজন্য তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তবে পরিবারের বরাত দিয়ে সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আবদুল্লাহ আল মামুন জানিয়েছেন, লিটন হত্যা মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের কথা বলা পুলিশ গত শুক্রবার মাসুদকে নিয়ে যায়।

এরপর আর মাসুদ বাড়ি ফেরেননি বলে তার বড় ভাই গোলাম মুর্তজা টুকু জানান।

গ্রেপ্তার আহসান হাবিব মাসুদ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে নিজ বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হন এমপি লিটন। এরপর তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সাড়ে ৭টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে মারা যান তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুই মোটরসাইকেলে করে পাঁচ দুর্বৃত্ত সরকার দলীয় সংসদস সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের নিজ বাড়িতে গিয়ে তাকে গুলি করে পালিয়ে যান।

রিমান্ডে জামায়াতের ৬ নেতাকর্মী:
এদিকে এ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার জামায়েত ইসলামীর ছয় নেতাকর্মীকে রোববার রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ।

গত ৩১ ডিসেম্বর গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নের শাহাবাজ গ্রামের বাড়িতে ঢুকে সাংসদ লিটনকে গুলি চালিয়ে হত‌্যা করে দুর্বৃত্তরা।

এ ঘটনায় লিটনের বোন অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন।

হত্যায় জড়িত সন্দেহে ৫৩ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তাদের মধ্যে ২৯ জনকে বিভিন্ন মামলা ও ৫৪ ধারায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

শুক্রবার সুন্দরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে জামায়েত ইসলামীর ছয় নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদেরকে লিটন হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার রিমান্ডের আবেদন করা হয়।

রোববার রিমান্ড আবেদন শুনে আদেশ দেন গাইবান্ধার মুখ্য বিচারিত হাকিম মইনুল হাসান ইউসুফ।

সংশ্লিষ্ট আদালতের পরিদর্শক এনামুল হক জানান, ছয়জনের সাত দিন রিমান্ড চেয়েছিল পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক সাতদিনই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Chief Editor & Publisher: A. K. RAJU

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: 9635272, 01787506342

©Titir Media Ltd.
39, Mymensingh Lane (2nd Floor), Banglamotor
Dhaka, Bangladesh.