শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮
বিশেষ নিউজ

সুইডেনের তিন সদস্যবিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের বাংলাদেশ সফর


NEWSWORLDBD.COM - February 17, 2017

বাংলাদেশে সুইডেনের তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি প্রতিনিধি দল ৫ দিনের এক সংক্ষিপ্ত সফরে গত ৬ ফেব্রুয়ারী সোমবার ঢাকা আগমন করেন। প্রতিনিধি দলে ছিলেন সুইডেনের জাতীয় সংসদের সদস্য জেন্স হোল্ম, নুস্সি দাদগোস্তার ও বাংলাদেশী বংশদ্ভুত সুইডিশ রাজনীতিবিদ, স্টকহোল্ম কাউন্টি কাউন্সিলের নির্বাচিত কাউন্সিলার মহিবুল ইজদানী খান ডাবলু।

বাংলাদেশ সফরকালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী, পরিবেশ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মনজু, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডাক্তার দীপু মনি, সাবেক বাণিজ্য মন্ত্রী কর্নেল (অব:) ফারুক খান, বাংলাদেশে পরিবেশ সংক্রান্ত বিষয়ে সক্রিয় বিভিন্ন এন জি ও  সহ  বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎকারে মিলিত হন। ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রতিনিধিদের অভ্যর্থনা জানান সংসদে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক কমিটির সভাপতি আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রবিউল আলম মুক্তাদির চৌধুরী।

সফরকারীরা বিমানবন্দর থেকে সরাসরি বঙ্গবন্ধুর ৩২ বাসভবনে এসে মাল্যদান করেন। ঐদিন সন্ধ্যায় সুইডিশ রাষ্ট্রদূত প্রতিনিধিদলের সম্মানে তার বাসভবনে এক নৈশভোজের আয়োজন করেন। সুইডিশ প্রতিনিধি দল ১০ ফেব্রুয়ারী  শুক্রবার সুইডেনের রাজধানী স্টোকহোল্মের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন।

প্রতিনিধি দলের সদস্য বাংলাদেশী বংশদ্ভুত সুইডিশ রাজনীতিবিদ মহিবুল ইজদানী খান ডাবলু দৈনিক ইত্তেফাকের সাথে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আমাদের এই সফরের উদ্দেশ্য হলো পরিবেশ সংক্রান্ত বিষয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মেলনগুলোতে বাংলাদেশের পরিস্থিতি তুলে ধরা এবং এবেপারে সহযোগিতা করা।তিনি বলেন সুইডিশ জাতীয় সংসদে লেফট পার্টির পরিবেশ সংক্রান্ত বিষয়ের মুখপাত্র মিস্টার জেন্স হোল্ম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বায়ো গ্যাস ব্যবহারে এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ জানান এবং এবেপারে সুইডেন থেকে সব ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।এপ্রসঙ্গে সুইডেনের রাজধানী স্টোকহোল্মে বিভিন্ন বাস যাতায়াতে বায়ো গ্যাস  ব্যবহার করার কথা উল্লেখ করা হয়।প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখবেন বলে আমাদের আশ্বাস দেন।এই সময় সেখানে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ডক্টর গওহর রেজবী উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি সরকারের আনা দৈত্ব নাগরিকত্ব সংক্রান্ত বেপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন,বিষয়টি প্রবাসে দৈত্ব নাগরিকত্ব নিয়ে বসবাসরত বাঙালিদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।তিনি বলেন আমরা যদি দৈত্ব নাগরিকত্ব নিয়ে সুইডেনে সিটি কাউন্সিল, কাউন্টি কাউন্সিল ও জাতীয় সংসদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারি, আমাদের যদি  মন্ত্রী স্পিকার হওয়ার সুযোগ থাকে তাহলে জাতিগতভাবে বাঙালি হয়ে বাংলাদেশের নির্বাচনগুলোতে অংশগ্রহণে বাধা আসবে কেন? মহিবুল বলেন সুইডেনে আমাদের যখন সুইডিশ নাগরিকত্ব দেওয়া হয় তখন সেখানে পরিষ্কারভাবে লেখা থাকে আপনি সুইডিশ নাগরিক হলেও আপনার পূর্বের বাংলাদেশী নাগরিক বহাল রয়েছে।আপনি যদি বাংলাদেশী নাগরিকত্ব রাখতে না চান তাহলে দূতাবাসের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

ডাবলু বলেন, আমি আশাকরি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা বিষয়টির চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের পূর্বে আইনের ভালো মন্দ নিয়ে খোলামেলা আলোচনার মধ্য দিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক অসম্ভবকে সম্ভব করে আজ বাংলাদেশকে উন্নতির দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। তার এই  উন্নতিতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের রেমিটেন্স এক বিরাট শক্তির কাজ করছে। এমতাবস্থায় এধরণের একটি সিদ্ধান্তে দৈত্ব নাগরিক প্রাপ্ত বাংলাদেশিরা দেশে অর্থ বিনিয়োগে মুখ ফিরিয়ে নিতে পারে বলে তিনি মন্তব্য করেন।সুইডিশ রাজনীতিবিদ মহিবুল ইজদানী খান ডাবলু মহিলা সংরক্ষিত আসনের মতো দৈত্ব নাগরিকত্ব নিয়ে বসবাসরত প্রবাসী বাঙালিদের জন্য সংসদে ১০ আসন সংরক্ষিত রাখার অনুরোধ জানান।

প্রবাসে মূলধারার রাজনীতি বনাম বাংলাদেশী রাজনীতি সম্পর্কে স্টকহোল্ম কাউন্টি কাউন্সিলের কাউন্সিলার ডাবলু বলেন, আমি প্রবাসে বাংলাদেশী রাজনীতি করার বিপক্ষে নয়।তবে সে রাজনীতি ঘরোয়া রাজনীতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ হতে হবে।প্রধানমন্ত্রীর বিদেশ সফরকালে বিমানবন্দর সহ বিভিন্ন স্থানে যেভাবে বাংলাদেশী রাজনীতির মহড়া দেখানো হয় তাতে বাংলাদেশের মানকে বিদেশে নিচু করা হয়।সকল রাজনৈতিক দলকে এধরণের কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকার জন্য কেন্দ্র নির্দেশ দিতে পারে।মহিবুল এধরণের রাজনৈতিক মহড়া থেকে সরে আসার জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানান।সুইডিশ লেফট পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির মনোয়ন বোর্ডের সদস্য ডাবলু বলেন সুইডেনে বর্তমানে বিশ্বের ২৯ দেশের ইমিগ্রান্ট সুইডিশ জাতীয় সংসদের সদস্য থাকলেও এখন পর্যন্ত ভারত উপমহাদেশ থেকে কোনো জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে পারেনি।ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া   কেনাডা সহ বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশিরা মূলধারার রাজনীতিতে ব্যাপকভাবে  সক্রিয় হলে ভবিষ্যতে দেশগুলোর জাতীয় সংসদে আসন লাভের সম্ভবনা দেখা দিবে।

এবারের বই মেলায় মহিবুল ইজদানী খানের লেখা ‘ঢাকা টু স্টকহল্ম’ নামে একটি বই প্রকাশিত হয়েছে। এই বইতে তিনি ১৯৭৭ সালের জানুয়ারীতে বাংলাদেশ ছাড়ার কারণ সহ বঙ্গবন্ধুর জৈষ্ঠপুত্র শেখ কামালকে নিয়ে বিভিন্ন অপপ্রচার ও ৭২ থেকে ৭৬ পর্যন্ত ঘটে যাওয়া কিছু রাজনৈতিক ঘটনা তুলে ধরেছেন। বইটি প্রকাশ করেছে সমগ্র প্রকাশনী।

সাবেক ছাত্র লীগ নেতা বাংলাদেশী বংশদ্ভুত  সুইডিশ রাজনীতিবিদ মহিবুল ইজদানী খান ডাবলু বিগত ৪০ বৎসর থেকে সুইডেনে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন।তিনি ২০০২-২০০৬ স্টকহোল্ম সিটি কাউন্সিলে নির্বাচিত কাউন্সিলারের দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৬-২০১০ গ্রেটার স্টকহোল্ম এসেম্বলির (কাউন্টি কাউন্সিল) সদস্য নির্বাচিত হন ও ২০১০ – ২০১৪ সুইডিশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। বর্তমানে তিনি গ্রেটার স্টকহোল্ম এসেম্বলির (কাউন্টি কাউন্সিল) নির্বাচিত কাউন্সিলার (২০১৪-২০১৮)। এছাড়া তিনি সুইডিশ পোস্টাল ট্রেড ইউনিয়ন স্টকহোল্ম সাউথ টার্মিনাল শাখার নির্বাচিত সহ সভাপতি। বাংলাদেশে থাকাকালীন বঙ্গবন্ধুর জ্যৈষ্ঠ পুত্র শেখ কামালের নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর  ছাত্রলীগের কমিটিতে তিনি বিশেষ ভূমিকা  রেখেছিলেন।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: M. Arman Hossain

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.