সোমবার ২৩ অক্টোবর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » জাতীয় » ভাস্কর্যটি বসানো হল সুপ্রিম কোর্টের এনেক্স ভবনের সামনে
বিশেষ নিউজ

ভাস্কর্যটি বসানো হল সুপ্রিম কোর্টের এনেক্স ভবনের সামনে


NEWSWORLDBD.COM - May 28, 2017

mrinal_482হেফাজতের দাবির মুখে সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের সামনে থেকে সরিয়ে নেওয়া ভাস্কর্যটি সর্বোচ্চ আদালত প্রাঙ্গণের আরেকটি জায়গায় বসানো হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের বর্ধিত ভবন-এনেক্স ভবনের সামনে শনিবার রাতে ভাস্কর্যটি পুনঃস্থাপনের কথা জানিয়েছেন এর ভাস্কর মৃণাল হক।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃপক্ষের কথায় শনিবার রাত ১০টার দিকে ভাস্কর্যটি পুনঃস্থাপনের কাজ শুরু করেন। শেষ হয় রাত পৌনে ১টার দিকে।

এখানে ভাস্কর্যটি পুনঃস্থাপন করতে চাননি জানিয়ে মৃণাল হক বলেন, “ভাস্কর্যটি আগে যেখানে ছিল ভালো জায়গায় ছিল, হাজার হাজার লোক দেখত।

“সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের পেছনে এনেক্স ভবনের এই জায়গায় বাইরের লোকজন তেমন আসে না। এখানে বসানো না বসানো একই কথা। এখানে কেউ দেখবে না, জানবে না, শুধু কোর্টের লোকজনই দেখবে।”

রোমান যুগের ন্যায়বিচারের প্রতীক ‘লেডি জাস্টিস’এর আদলে এই ভাস্কর্য সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের প্রধান ফটকের বাইরে লিলি ফোয়ারার সামনে স্থাপন করা হয়েছিল গত বছরের ডিসেম্বরে।

এরপর হেফাজতে ইসলামসহ কয়েকটি ইসলামী সংগঠন ভাস্কর্যটির বিরোধিতায় নামে। গত ১১ এপ্রিল হেফাজতের আমির শাহ আহমদ শফী নেতৃত্বাধীন একদল ওলামার সঙ্গে গণভবনে এক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাস্কর্যটি সরাতে পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

ভাস্কর্যটি সরানোর পক্ষে এর নান্দনিক ‘ত্রুটির’ পাশাপাশি জাতীয় ঈদগাহের কাছে অবস্থানের কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

ভাস্কর্য অপসারণের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী সায় দেওয়ার পর রোজা শুরুর আগে তা সরানোর দাবি জানিয়ে আসছিল হেফাজতসহ ইসলামী দলগুলো।

রোজা শুরুর তিন দিন আগে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে সুপ্রিম কোর্টের মূল ভবনের সামনে থেকে ভাস্কর্যটি অপসারণ করা হয়। সেটি নিয়ে রাখা হয়েছিল এনেক্স ভবনের পিছনে।

ভাস্কর্যটি অপসারণে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে সেটি আবার আগের জায়গায় পুনঃস্থাপনের দাবি জানিয়ে আসছিল বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ছাত্র সংগঠন।

দেশের শীর্ষস্থানীয় লেখক, অধ্যাপক, শিল্পী, সাহিত্যিকরাও ভাস্কর্য সরানোয় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। একে ‘মৌলবাদী শক্তির কাছে আত্মসমর্পণ’ আখ্যায়িত করে আগের জায়গায় পুনঃস্থাপনের দাবি জানান তারা।

বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ভাস্কর্য অপসারণের কাজ চলার মধ্যেই সুপ্রিম কোর্টের সামনের রাস্তায় বিক্ষোভ করেন গণজাগরণ মঞ্চ ও বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের কর্মীরা।

পরদিন দিনভর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বিক্ষোভ হয়, ঘটে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ। বিক্ষোভ থেকে ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দীসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ভাস্কর্যও অপসারণের প্রতিবাদে শনিবারও বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশ থেকে আগামী ৩ জুন ‘প্রতিবাদ দিবস’ পালনের ঘোষণা দিয়েছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor-In-Chief & Publisher: AHM Anwarul Karim

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
43/B/1, East Hazipara, Rampura
Dhaka-1219, Bangladesh.