শুক্রবার ১৮ অগাস্ট ২০১৭
বিশেষ নিউজ

পাহাড়ে ট্র্যাজেডি: মাটিচাপায় প্রাণহানি ৭৮


NEWSWORLDBD.COM - June 13, 2017

ন্যাশনাল ডেস্ক: পাহাড় ধসে সোমবার রাত এবং আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত রাঙ্গামাটির উপজেলাসহ বান্দরবান ও চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলায় ৭৮ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৩৫ জন নিহত হয়েছে রাঙ্গামাটিতে। এছাড়া, চট্টগ্রামে ১৭ এবং বান্দারবানে পাহাড় ধসে একই পরিবারের ৩ শিশুসহ ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সাধারণ জনগণের বাইরে নিহতের তালিকায় রয়েছেন এক মেজর ও এক ক্যাপ্টেনসহ ৬ সেনা সদস্য।

নিহত মেজরের নাম মাহফুজ ও ক্যাপ্টেনের নাম তানভীর এবং নিহত চার সেনা সদস্যের মধ্যে দুজন হচ্ছেন শাহিন ও আজিজ। মানিকছড়িতে পাহাড়ের ওপর থাকা ক্যাম্পে অবস্থান করার সময় পাহাড় ধস হলে হতাহতের ঘটনা ঘটে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেনা ক্যাম্পধসে চট্টগ্রামের সঙ্গে রাঙ্গামাটির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

একটি সূত্র বলছে, ওই সেনা সদস্যরা উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করতে গিয়ে মারা গেছেন।

পার্বত্য অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় দুই দিনের বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে অনেক নীচু এলাকা। সোমবার রাতে পাহাড় ধসে বান্দরবানের কালাঘাটাপাড়ায় একই পরিবারের ৩ শিশু মারা যায়। লেমুঝিড়িতে বাড়ি ধসে মৃত্যু হয় মা-মেয়ের। একই এলাকায় বান্দরবান সরকারি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী শুভ ত্রিপুরা নিখোঁজ রয়েছে। টানা বর্ষণে সাঙ্গু ও মাতামুহরী নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

চট্টগ্রামের ধোপাছড়ি এলাকাতেও প্রবল বৃষ্টিপাতে পাহাড় ধসে ১৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। সেখানে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। চট্টগ্রামের চন্দনাইশে বান্দরবান সীমান্তে ধোপাছড়িতে ৪জন ও রাঙ্গুনীয়া উপজেলার রাজানগর ও ইসলামপুরে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে আরো ২জন। অবিরাম বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চন্দনাইশ কসাইপাড়া এলাকায় প্লাবিত হয়ে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

টানা বর্ষণে ভোলা সদররের ইলিশা, মনপুরা এবং চাদপুর ইউনিয়নের ১৫টি গ্রাম তলিয়ে গেছে। তলিয়ে গেছে রাস্তাঘাট, পুকুর, মাছের ঘের, ফসলি জমিসহ বিস্তীর্ন জনপদ।

রাঙ্গামাটিতে সোমবার রাতে পাহাড় ধসে কমপক্ষে ৩৫ জন মারা গেছে। এর মধ্যে রাঙ্গামাটি শহরে ১১জন ও কাপ্তাই উপজেলায় ৩জনের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাস্থলে উদ্ধারকাজ চলছে বলে জানানো হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন উদ্ধারকর্মীরা।

বান্দরবানের বিভিন্ন স্থানেও পাহাড় ধসে একই পরিবারের ৩ শিশুসহ ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে এ পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, সুমন বড়ুয়ার সন্তান শুভ বড়ুয়া (৮) মিতু বড়ুয়া (৬) লতা বড়ুয়া (৫)। অপর পাহাড় ধসের ঘটনায় কালাঘাটা এলাকায় রেভা ত্রিপুরা (১৯) নামে বান্দরবান সরকারী কলেজের ২য় বর্ষের ছাত্রের মৃত্যু হয়। এ ছাড়াও লেমুঝিরি আগা পাড়ায় পাহাড় ধসে মা-মেয়ে নিখোঁজ রয়েছেন। তারা হলেন কামরুন নাহার (২৭) সুকিয়া আক্তার (৮)।

বান্দরবানের কালাঘাটাপাড়া ও লেমুঝিড়ি আগাপাড়ার বাসিন্দারা জানান, টানা বৃষ্টিতে কালাঘাটাপাড়ায় পাহাড়ের নিচের একটি বাড়ি ধসে পড়লে একই পরিবারের ৩ শিশু মারা যায়। লেমুঝিড়িতে বাড়ি ধসে নিখোঁজ হন মা-মেয়ে। ভোর ৪টা থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা মাটির নিচ থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে।

এদিকে অবিরাম বৃষ্টিতে অচল হয়ে পড়েছে উপকূলীয় এলাকার জীবনযাত্রা।পানিতে আটকা পড়েছে লক্ষাধিক মানুষ। দেশের ৪টি সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত বহাল রাখতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। ৩ নং স্থানীয় সংকেত জারি রয়েছে।

ওদিকে কক্সবাজারে জোয়ারের পানিতে ২০ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। সাগর থেকে ফেরার পথে ট্রলার ডুবির ঘটনায় এখনো ৬ জেলে নিখোঁজ রয়েছে।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...







Editor: AHM Anwarul Karim

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
43/B/1, East Hazipara, Rampura
Dhaka-1219, Bangladesh.