সোমবার ২৩ অক্টোবর ২০১৭
বিশেষ নিউজ

সরকারি চাকরিজীবীদের বাড়ি নির্মাণ ঋণ বিতরণের প্রক্রিয়া চলছে


NEWSWORLDBD.COM - August 4, 2017

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন স্কেল অনুযায়ী কমসুদে বাড়ি তৈরির ঋণ বিতরণের দাফতরিক প্রক্রিয়া শুরু করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। আবেদনকারীদের মধ্যে চলতি অর্থবছরের মধ্যেই এই ঋণ বিতরণ শুরু করা হবে। এজন্য আনুষ্ঠানিকভাবে নিজ নিজ দপ্তরের মাধ্যমে আবেদন করার প্রজ্ঞাপন জারি হবে। অর্থ বিভাগের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য জানায়।

বাড়ি নির্মাণ বা ফ্ল্যাট ক্রয়ের জন্য এই ঋণ নির্ধারণ হবে অষ্টম জাতীয় পে-স্কেল অনুযায়ী। যার যত স্কেল তিনি সেই অনুযায়ী ঋণ পাবেন। এই ঋণের সুদের হার হবে ৫ শতাংশ। যা যেকোনো ধরনের ঋণের সুদের চেয়ে অন্তত ৫ শতাংশ কম।

অষ্টম পে-স্কেল সুপারিশ অনুযায়ী সরকারি চাকরিজীবীরা তাদের বেতনের ৬০ থেকে ৮০ মাসের বেতনের সমান বাড়ি নির্মাণ বাবদ ঋণ পাবেন।

সরকারি চাকরিজীবীদের আবাসন সমস্যা সমাধানে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশনায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এই সংক্রান্ত একটি কমিটি গঠন করে। এই কমিটি যৌক্তিকহারে বাড়ি নির্মাণ ঋণ নির্ধারণ করে সুপারিশ করে। সেই সুপারিশের আলোকেই ঋণ দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

অষ্টম পে-স্কেলের ২০তম গ্রেডে থাকা একজন সরকারি চাকরিজীবী ১২ লাখ টাকা ঋণ পাবেন। আর গ্রেড-১ এর কর্মকর্তারা পাবেন সর্বোচ্চ ৫০ লাখ। মাঝের ২ থেকে ১৯তম গ্রেডের চাকরিজীবীরা এই অনুযায়ী ঋণ পাবেন। এ ছাড়া ২০ জনের একটি গ্রুপ করে জমি কেনার জন্যও ঋণ দেওয়ার বিধান রাখা হয়েছে অষ্টম জাতীয় পে-স্কেলে। এক্ষেত্রে জমির পরিমাণ হবে সর্বনিম্ন পাঁচ কাঠা থেকে সর্বোচ্চ ২০ কাঠা।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাড়ি নির্মাণ ঋণ দেওয়ার ব্যাপারে অষ্টম পে-স্কেলের সুপারিশ কিছু বিশ্লেষণ করে। সেই অনুযায়ী সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে সরকারি চাকরিজীবীদের বাড়ি নির্মাণ ঋণ চূড়ান্ত করার বিষয়ে উদ্যোগ নিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে নির্দেশনা দেওয়া হয়। সেই নির্দেশনার আলোকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার)-কে আহ্বায়ক করে কমিটি গঠন করা হয়। সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা জানান, অষ্টম পে-স্কেলের সুপারিশ অনুযায়ী কমিটি তাদের সুপারিশ করেছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে ১৯৯৬ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সর্বশেষ সরকারি চাকরিজীবীদের বাড়ি নির্মাণ ও গাড়ি ক্রয় ঋণের টাকার পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়। ৩৬ মাসের মূল বেতনের সমান সর্বোচ্চ ১ লাখ ২০ হাজার টাকা বাড়ি নির্মাণ ঋণ এবং ১২ মাসের মূল বেতনের সমান সর্বোচ্চ ৪০ হাজার টাকা গাড়ি ক্রয় ঋণ নির্ধারণ করা হয়। এছাড়া বাড়ি মেরামতের জন্য ১৮ মাসের বেতনের সমান সর্বোচ্চ ৬০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়। এসব ঋণের সুদের হার ছিল ১০ শতাংশ। তার আগে ১৯৯০ সালে ২০ অক্টোবরের প্রজ্ঞাপনে গৃহনির্মাণে ২৪ মাসের মূল বেতনের সমান সর্বোচ্চ ৮০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা ছিল।

বলাই বাহুল্য, এই পরিমাণ টাকা দিয়ে বাড়ি নির্মাণ দূরের কথা বাড়ির খাট-টিভি-সোফা সেট কিনতেও আজকাল কষ্ট হয়!

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor-In-Chief & Publisher: AHM Anwarul Karim

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
43/B/1, East Hazipara, Rampura
Dhaka-1219, Bangladesh.