শনিবার ১০ নভেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » সারা দেশ » সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় মামলা: পত্রিকা অফিস ভাঙচুর, হামলা
বিশেষ নিউজ

সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় মামলা: পত্রিকা অফিস ভাঙচুর, হামলা


NEWSWORLDBD.COM - October 14, 2017

নিজস্ব প্রতিবেদক: ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে অমর্যাদাকর মন্তব্য করার অভিযোগে ঢাকার দৈনিক আমাদের অর্থনীতি পত্রিকার সাংবাদিক আনোয়ারুল করিমের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় (সাইবার ক্রাইম অ্যাক্ট) মামলা হয়েছে।

এদিকে গতকাল শুক্রবার রাতে সাংবাদিক আনোয়ারুল করিমের ওপর ঢাকার পান্থপথে হামলা হয়েছে বলে জানা গেছে। তার ওপর রাস্তায় হামলার আগে তার কর্মক্ষেত্রেও একদল সশস্ত্র ব্যক্তির হামলার খবর পাওয়া গেছে। হামলায় ওই সাংবাদিকের মোটর সাইকেল ভাঙচুর করা হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। হামলার সময় তিনি এলাকাবাসীর সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এই হামলা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন সাংবাদিক আনোয়ারুল করিম। তিনি গতকাল রাতে টেলিফোনে একটি সংবাদ সংস্থাকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নোবেল পুরস্কার পাওয়ার আশায় সরকারি কোষাগারের তথ্য বিনিয়োগ করে লবিস্ট নিয়োগ করে তদবির করেছেন এমন একটি সংবাদ আমি ফেসবুকে প্রকাশের কারণেই আমার ওপর এই হামলা। তিনি আরও বলেন, সংবাদটি প্রকাশ না করার জন্য সরকারের চাপের কারণে আমার পত্রিকার সম্পাদক এটি প্রকাশ করতে রাজি না হওয়ায় আমি ফেসবুকে প্রকাশ করি।

আনোয়ারুল করিমের ফেসবুক পোস্টটি আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’-এর কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান নাদিম বাদী হয়ে ঢাকার ধানমন্ডি থানায় গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার পর এই মামলা দায়ের করেন। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে ধানমন্ডি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ সাংবাদিকদের জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে বিভ্রান্তিকর ও অমর্যাদাকর তথ্য প্রকাশের অভিযোগে আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় এই মামলা হয়েছে। দৈনিক আমাদের অর্থনীতি পত্রিকার সাংবাদিক এএইচএম আনোয়ারুল করিমের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার এজাহারটি যাচাই-বাছাই শেষে শুক্রবার রাতে মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। মামলা গ্রহণ করে ওই সাংবাদিককে গ্রেফতারে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। ওসি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নোবেল পুরস্কার পাওয়ার পেছনে অর্থ বিনিয়োগ সংক্রান্ত একটি সংবাদ ও মন্তব্য ফেসবুকে দেওয়ায় সাংবাদিক করিমের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ছাত্রলীগ নেতা নাদিম।

সাইবার ক্রাইম বা তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের ৫৭ ধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি ইচ্ছাকৃতভাবে ওয়েবসাইটে বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন, যা মিথ্যা ও অশ্লীল বা সংশ্লিষ্ট অবস্থা বিবেচনায় কেউ পড়লে, দেখলে বা শুনলে নীতিভ্রষ্ট বা অসৎ হতে উদ্বুদ্ধ হতে পারেন অথবা যার দ্বারা মানহানি ঘটে, আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটে বা ঘটার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়, রাষ্ট্র ও ব্যক্তির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে বা করতে পারে বা এ ধরনের তথ্যাদির মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা সংগঠনের বিরুদ্ধে উসকানি প্রদান করা হয়, তাহলে এ কাজ অপরাধ বলে গণ্য হবে। এই অপরাধে সর্বোচ্চ ১৪ বছর ও সর্বনিম্ন ৭ বছর কারাদণ্ড এবং সর্বোচ্চ ১ কোটি টাকা অর্থদণ্ড দেওয়ার বিধান আছে।

আইসিটি আইনটি প্রথমে প্রণয়ন করা হয় ২০০৬ সালে। পরে ২০১৩ সালে সংশোধন করে শাস্তি বাড়িয়ে সেটিকে আরও কঠোর করা হয়। সাইবার নিরাপত্তা, ডিজিটাল নিরাপত্তা এবং এ-সংক্রান্ত অপরাধের শাস্তির বিষয়ে নতুন আইন প্রণয়নের কাজ শুরু হয় ২০১৫ সালে। আইসিটি আইনের ৫৭ ধারা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিতর্ক চলছে। এতে মানুষ হয়রানির শিকার হয়েছেন। এই বছরের জানুয়ারি থেকে জুন মাস পর্যন্ত ছয় মাসে মামলা হয়েছে ৩৯১টি। এসব মামলায় আসামি ৭৮৫ জন, যাঁদের ৩১৩ জন গ্রেপ্তার হন। এই সময়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ১৯ জন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা ৫৭ ধারায়। এই আইনের অপব্যবহার মতপ্রকাশ ও ব্যক্তিস্বাধীনতার প্রতি হস্তক্ষেপ বলে মন্তব্য করে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আসিফ নজরুল এই আইন সম্পর্কে বলেছেন, আইসিটি আইনে অপরাধের সংজ্ঞা অস্পষ্ট থাকায় সরকারি দলের নেতা-কর্মীরা যেকোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে তা ব্যবহার করতে পেরেছেন। হাইকোর্টের আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, ‘আইসিটি আইনের ৫৭ ধারাটি মৌলিক অধিকারের পরিপন্থী।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: Anwarul Karim Raju

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.