বৃহস্পতিবার ১৮ জানুয়ারী ২০১৮
বিশেষ নিউজ

বিমান দুর্ঘটনায় শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্রের সত্যতা পায়নি পুলিশ


NEWSWORLDBD.COM - December 7, 2017

বিশেষ প্রতিনিধি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটির ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামিদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে অন্তর্ঘাতমূলক কার্যক্রমের অভিযোগের সত্যতা না পেয়ে সবার অব্যাহতির আবেদন করেছে পুলিশ।

তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার মাহবুবুল আলম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে এই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন।

আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা উপ-পরির্দশক এস এম মনিরুজ্জামান মণ্ডল বলেন, “মামলার ১১ আসামির সবাইকে ওই অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করা হয়েছে প্রতিবদনে। তবে এর মধ্যে প্রথম দিকের তিনজন আসামিকে স্বল্প মাত্রার অবহেলার দায়ে ছোট মাত্রার সাজা চেয়ে অআমলযোগ্য প্রসিকিউশনের আবেদন করা হয়েছে।”

এ ঘটনায় নয়জন কর্মকর্তাকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছিল বিমান কর্তৃপক্ষ। পরে তদন্তে গিয়ে আরও দুজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ত্রুটির কারণে জরুরি অবতরণের পর তুর্কমেনিস্তানের আশখাবাত বিমানবন্দরে বিমানের বোয়িং উড়োজাহাজটি ত্রুটির কারণে জরুরি অবতরণের পর তুর্কমেনিস্তানের আশখাবাত বিমানবন্দরে বিমানের বোয়িং উড়োজাহাজটি আসামিরা হলেন- বিমানের প্রধান প্রকৌশলী (প্রডাকশন) দেবেশ চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী (কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স) এসএ সিদ্দিক ও প্রধান প্রকৌশলী (মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড সিস্টেম কন্ট্রোল) বিল্লাল হোসেন, বিমানের প্রকৌশলী (ইঞ্জিনিয়ারিং অফিসার) নাজমুল হক, প্রকৌশল কর্মকর্তা এসএম রোকনুজ্জামান, সামিউল হক, লুৎফর রহমান, মিলন চন্দ্র বিশ্বাস, জাকির হোসাইন, টেকনিশিয়ান সিদ্দিকুর রহমান ও কনিষ্ঠ টেকনিশিয়ান শাহ আলম।

এই কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সবাইকে সাময়িকভাবে চাকরিচ্যুত করা হয়েছিল। তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল কয়েক দফায়।

সন্ধ্যায় প্রতিবেদনটি জমা পড়ায় কোনো বিচারকের কাছে উপস্থাপন করা সম্ভব হয়নি বলে জানান এসআই মনিরুজ্জামান।

আগামী ১১ ডিসেম্বর এই মামলার প্রতিবেদন আদালতে দাখিলের দিন রয়েছে। ওই প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

গত বছরের ২৭ নভেম্বর হাঙ্গেরি যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৭৭ বিমান যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশখাবাতে জরুরি অবতরণ করে। ত্রুটি মেরামত করে সেখানে চার ঘণ্টা অনির্ধারিত যাত্রাবিরতির পর ওই উড়োজাহাজেই প্রধানমন্ত্রী বুদাপেস্টে পৌঁছান।

ওই ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর তাদের তদন্ত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে জমা দেয়, যাতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কর্মকর্তাদের গাফিলতিতে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিয়েছিল বলে বলা হয়।

এরপর ওই বছরের ৩০ নভেম্বর বাংলাদেশ বিমানের ছয় কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। ১৪ ডিসেম্বর বরখাস্ত হন বিমানের তিন প্রকৌশলীও।

এরপর ২০ ডিসেম্বর বাংলাদেশ বিমানের প্রধান প্রকৌশলীসহ নয়জনকে আসামি করে ওই মামলা দায়ের করা হয়।

১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫ (গ) ধারায় করা ওই মামলার এজাহারে বলা হয়, বিভাগীয় তদন্তে এই কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে “পরস্পর যোগসাজশে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে যন্ত্রপাতি নিয়া অবহেলামূলক আচরণ করতঃ অন্তর্ঘাতমূলক কার্যক্রম করার প্রমাণ পাওয়া গেছে”।

ছবি: ওই ঘটনায় বিমানের এই কর্মকর্তাদের গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেওয়া হয়, চাকরিচ্যুত করা হয়েছিল এদের সবাইকে।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Chief Editor & Publisher: Anwarul Karim

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.