বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » সারা দেশ » নারায়ণগঞ্জের প্রতিমা ভাংচুর, চট্টগ্রামে হিন্দু পল্লীতে হামলা
বিশেষ নিউজ

নারায়ণগঞ্জের প্রতিমা ভাংচুর, চট্টগ্রামে হিন্দু পল্লীতে হামলা


NEWSWORLDBD.COM - January 8, 2018

নিজস্ব প্রতিনিধি/সংবাদদাতা: চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার খানখানাবাদ ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের জেলেপল্লীতে জায়গা দখল ও উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে দুই দফা হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। ভূমিখেকোদের হামলায় হিন্দু সম্প্রদায়ের মহিলা নারীসহ আহত হয়েছে অন্তত ৮জন। আহতদের বাঁশখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জেলেপল্লীতে হামলার ঘটনায় থানা পুলিশের পক্ষ থেকে নজরদারি জোরদার করা হয়েছে। বাঁশখালী উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রদীপ গুহ প্রতিবাদ ও ঘটনার সঙ্গে জড়িত সকলকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানান। এ ব্যাপারে বাঁশখালী থানার ওসি আলমগীর হোসেন বলেন, কি কারণ জেলেপল্লীতে হামলার ঘটনা ঘটেছে তা উদঘাটনে পুলিশের বিশেষ টিম মাঠে রয়েছে।
জানা যায়, খানখানাবাদ ইউপির ১নং ওয়ার্ডে হিন্দ্র সম্প্রদায়ের শতাধিক জেলে পরিবারের বসবাস। ৯১ ঘূর্ণিঝড়ের সময় তিন শতাধিক জেলেপল্লীর লোক প্রাণ হারান। তাছাড়া ঘরবাড়ি সাগরে তলিয়ে যায়। ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী জেলেপল্লীর অসহায় মানুষকে পুনর্বাসনের লক্ষ্য বাংলাদেশ নরওয়েজিয়ান সেন্ট্রাল খ্রীস্টান মিশনারী সংস্থা হতে ৮৪ পরিবারকে জায়গা ক্রয় করে দানপত্রমূলে রেজিস্ট্রি করে দেয়। সেই থেকে জেলেপল্লীর মানুষ ওই এলাকায় বসবাস করে আসছিল। তবে কিছুদিন আগে ঐ জায়গার ওপর কুনজর পড়ে স্থানীয় মৃত নাগুর পুত্র মোঃ রফিক ও শামসুল আলমের পুত্র মোঃ সেলিমের। জেলেপল্লীর জায়গা দখল ও উচ্ছেদের নিমিত্তে শনিবার রাত ৮টার দিকে সংঘবদ্ধ ভূমিদস্যুরা প্রথম দফায় বসতঘরে হামলা চালায়। এ সময় জেলেপল্লীর মানুষ বাধা দিলে পুনরায় সংগঠিত হয়ে শনিবার সকালে ২য় দফা হামলা ও লুটপাট চালায়। ভূমিদস্যুদের হামলা ও লুটপাটে ঘরবাড়ি তছনছ হয়ে যায়। এ সময় পরিবারের সদস্যরা বাধা দিতে গেলে তাদের ওপরও এলোপাথাড়ি হামলা চালায় তারা। হামলায় বসতঘরের মহিলা সদস্যসহ আহত হয়েছে অন্তত ৮জন। এরা হলো প্রদীপ বালা জলদাস, রবা জলদাস, সুনিল জলদাস, সুভাষ জলদাস ও সুভ্রত জলদাস। এদিকে আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হলেও আবারও হামলার ভয়ে শতাধিক জেলে পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

এদিকে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ইউসুফগঞ্জ এলাকায় সরকারি জমিতে অবস্থিত একটি রক্ষাকালী মন্দিরের ৩টি প্রতিমা ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার রাতের কোনও এক সময় কে বা কারা প্রতিমা তিনটি ভাঙচুর করে। মন্দিরের সভাপতি সংগ্রাম চন্দ্র দাস রানা জানান, শনিবার রাতে তিনি মন্দিরে পূজা করে বাড়িতে চলে যান। রবিবার সকালে মন্দিরে গিয়ে দেখেন কালী, মহাদেব ও সিংহের প্রতিমা ভাঙা। মাটিতে পড়ে আছে। পরে তিনি পুলিশকে বিষয়টি জানান। সংগ্রাম চন্দ্রের ধারণা, রাতের কোনও এক সময় দুর্বৃত্তরা প্রতিমাগুলো ভেঙেছে। রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন জানান, ইউসুফগঞ্জ রক্ষাকালী মন্দিরটি ঢাকা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অধিগ্রহণ করা জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত। এটি একটি নির্জন জায়গায় অবস্থিত। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

যে কোনো সংবাদ জানতে আমাদের ফেসবুক পেজ 'লাইক' করতে পারেন (এই লাইনের নিচে দেখুন)...






-

Editor & Publisher: M. Arman Hossain

NEWSWORLDBD.COM
email: [email protected]
Phone: +8801787506342

©Titir Media Ltd.
News & Editorial: 39 Mymensingh Lane, Banglamotor
Dhaka-1205, Bangladesh.